বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:৪৮ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :::
সিলেটের জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল সিলেট ফোকাস নিউজ ডটকম এর জন্য সিলেট বিভাগসহ দেশ বিদেশে সংবাদদাতা ও জেলা উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা ইমেইলে আপনাদের সিভি পাঠাতে পারেন।
শিরোনাম ::::
জগদীশ সামন্তের নৌকা মার্কার সমর্থনে সিলেটে মতবিনিময় সিলেট থেকে ছেড়ে যাওয়া চলতে ট্রেনএর বগির হঠাৎ দুই ভাগ! সিলেটে বাস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে-নিহত ১ আহত ১৫ সিলেট মহানগর আঃলীগের সভাপতি মাসুক উদ্দিনের সাথে রিক্সা মালিক শ্রমিকদের মতবিনময় সিলেটের ৫৫টি স্কুলে গ্রাফিক নভেল ‘মুজিব’ বিতরণ করলো বিকাশ সিলেটে বাড়ি ছেড়ে ৪ যুবক নিখোঁজ সিলেটে ‘জাওয়াদ’র প্রভাব, শীত বাড়ার আভাস গোয়াইনঘাটে ২২৫ বোতল ভারতীয় মদসহ আটক ৩ জাফলংয়ে ওয়ার্ড যুবলীগের উদ্যোগে শহীদ শেখ ফজলুল হক মনি’র ৮৩-তম জন্মদিন পালিত সব সিটি করপোরেশনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া ক্ষমতায় থাকাকালে তারা কী করেছেন, বিএনপিকে তথ্যমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণতন্ত্রকে শৃঙ্খলমুক্ত করতে আন্দোলন করছেন’-ওবায়দুল কাদের বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে দলিত জনগোষ্ঠীর ৮ দফা দাবিতে মানববন্ধন ফ্রেন্ডস পাওয়ার ক্লাবের একযুগ পূর্তি উৎসব পালন সেনাবাহিনী দেশে-বিদেশে তার উপর অর্পিত দায়িত্ব সঠিকভাবে পালনে সক্ষম-জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমদ সিলেটেও ‘জাওয়াদ’র প্রভাব, দিনভর দেখা নেই সূর্যের খান বাহাদুর কল্যাণ ট্রাস্ট্র ও ইংল্যান্ডের আল মোস্তফা কল্যাণ ট্রাস্টের ফ্রি চক্ষু সেবা মেডিক্যাল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত গণমানুষের কবি দিলওয়ারকে নিবেদিত রচনা প্রতিযোগিতা বালাগঞ্জে কুশিয়ারা নদীর উপর সেতু নির্মানের স্থান পরিদর্শন-হাবিব ও নেছার আহমদ এম.পি কোন মুসলমান ইসলাম ছাড়া কারও মত গ্রহণ করতে পারে না : পীর সাহেব চরমোনাই
থাইল্যান্ডের গুহায় আটকা পড়াদের দেওয়া হচ্ছে ‘স্কুবা ডাইভিং প্রশিক্ষণ’

থাইল্যান্ডের গুহায় আটকা পড়াদের দেওয়া হচ্ছে ‘স্কুবা ডাইভিং প্রশিক্ষণ’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ::থাইল্যান্ডে পানিভর্তি গুহায় আটকা পড়া শিশু ফুটবলারদেরকে স্কুবা ডাইভিং শেখানো হচ্ছে। ডাইভিং করে গুহা থেকে বের হয়ে আসার সময় কিভাবে স্কুবা মাস্কের সাহায্যে শ্বাস-প্রশ্বাস চালাতে হবে তা নিয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। গুহার পানি নিষ্কাশনেরও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে থাই কর্তৃপক্ষ। আগামী শুক্রবার (৬ জুলাই) একটি ঝড়ের পূর্বাভাস রয়েছে। আবারও বৃষ্টি শুরু হলে গুহা পুরোপুরি প্লাবিত হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছে কর্তৃপক্ষ। আর তার আগেই শিশুদের উদ্ধারের জন্য উদ্ধারকারীদেরকে দ্রুততার সঙ্গে কাজ করার তাগিদ দেওয়া হচ্ছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদন থেকে এসব কথা জানা গেছে।।

২৩ জুন থাইল্যান্ডের স্থানীয় সময় বিকাল ১১টা থেকে ১৬ বছর বয়সী ১২ ফুটবলার ও তাদের ২৫ বছর বয়সী কোচ উত্তরের প্রদেশ চিয়াং রাইয়ের ‘থাম লুয়াং নায় নন’ গুহায় প্রবেশ করেন। পরে প্রবল বৃষ্টিতে গুহার প্রধান প্রবেশপথ রুদ্ধ হলে তারা আটকে পড়ে। আটকে পড়া শিশুরা জীবিত আছে বলে সোমবার (২ জুলাই) নিশ্চিত হওয়া গেছে। আটকে পড়া ১২ শিশু ফুটবলারের কেউই সাঁতার জানে না। মঙ্গলবার (৩ জুলাই) থাইল্যান্ডের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনুপং পাওজিন্দা জানান,১২ ফুটবলার ও তাদের কোচকে গুহার প্রবেশপথে নিয়ে আসার জন্য কাজ চলছে। শুরুতে উদ্ধারকারীরা যতটা সম্ভব পানি কমানোর চেষ্টা করছেন। তারপরও কিছু কিছু জায়গায় আটকা পড়া ফুটবলারদের সাঁতরে আসতে হবে। তাদের প্রত্যেকের সঙ্গে দুইজন করে উদ্ধারকারী থাকলেও সরু পথগুলো দিয়ে তাদেরকে একাই পার হতে হবে।

সামনের সপ্তাহে নতুন করে বৃষ্টিপাত শুরুর আগেই আটকা পড়া ফুটবলারদের বের করে আনাকে জরুরি বলে মনে করছে কর্তৃপক্ষ। উদ্ধারকারী ডুবুরিরা যেন তাদেরকে গুহার বাইরে নিয়ে আসতে পারেন তা নিশ্চিত করতে ওই শিশুদেরকে স্কুবা মাস্ক দিয়ে শ্বাসগ্রহণে অভ্যস্ত করে তুলতে হবে। আর সেদিক বিবেচনায় নিয়ে এরইমধ্যে শিশু ফুটবলারদেরকে স্কুবা মাস্ক ব্যবহারের প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।

১১ দিন ধরে আটকা পড়ে থাকা শিশুদের চিকিৎসা সহায়তা দিতে মঙ্গলবার (৩ জুলাই) রাতে তাদের কাছে পৌঁছান এক চিকিৎসক। সারারাত সেখানে কাটিয়েছেন তিনি। একজন নার্স ও চার সেনা সদস্যও তার সঙ্গে যান। চিয়াং রাই প্রদেশের গভর্নর বলেন, ‘আমাদের নিজেদের সন্তানের মতো করেই আমরা ওদের খেয়াল রাখছি।’ কর্তৃপক্ষ বলছে, খাবার ও পানি পাওয়ার পর শিশুদেরকে মানসিক ও শারীরিকভাবে আগের চেয়ে সুস্থ মনে হয়েছে। তবে তাদের সঙ্গে মা-বার যোগাযোগ করিয়ে দেওয়া সম্ভব হয়নি। গুহায় একটি ওয়াটারপ্রুফ মোবাইল পাঠানোর চেষ্টা করা হলেও ডিভাইসের ওয়াটারপ্রুফ সিল ভেঙে গিয়ে পরিকল্পনা ভেস্তে যায়। সেখানে আরেকটি মোবাইল পাঠানোর চেষ্টা চলছে।

এক সেনা মুখপাত্র মঙ্গলবার বলেন, ‘একবার যদি তাদের কাছে মোবাইল নিয়ে যাওয়া যায় এবং তাদের সঙ্গে পরিবারের কথা বলিয়ে দেওয়া যায়, তবে চাপ অনেকটা কমে যাবে।’

মঙ্গলবার থাই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনুপং বলেন,‘যেহেতু আগামী কয়েকদিন বৃষ্টি হবে বলে আভাস রয়েছে, সেক্ষেত্রে উদ্ধার প্রক্রিয়া জোরেশোরে চালাতে হবে। ডাইভিং গিয়ার ব্যবহার করা হবে। যদি পানি বেড়ে যায়, কাজ কঠিন হয়ে পড়বে। আমাদের তার আগেই ওই বাচ্চাদের বের করে আনতে হবে।’

উদ্ধারের পর ফুটবলারদের চিকিৎসা দেওয়ার জন্য চিয়াং রাই প্রাচানুকরোহ হাসপাতাল প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জনস্বাস্থ্য বিষয়ক মহাপরিদর্শক থংচাই লের্তিউইলাইরাতানাপং জানান, গুহায় আটকা পড়া ফুটবলাররা ভালো আছেন। তবে তাদের যথাযথ পুষ্টির দরকার। দীর্ঘ সময় ধরে অন্ধকারে থাকার কারণে বাইরে আসার পর আলোর সঙ্গে খাপ খাওয়াতে তাদের সমস্যা হতে পারে। এজন্য তাদের সানগ্লাস ব্যবহার করতে হতে পারে।

  •  
  •  
  •  
  •  

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © sylhetfocusnews.com
Design BY Web Nest BD
ThemesBazar-Jowfhowo