রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৮:৫৬ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :::
সিলেটের জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল সিলেট ফোকাস নিউজ ডটকম এর জন্য সিলেট বিভাগসহ দেশ বিদেশে সংবাদদাতা ও জেলা উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা ইমেইলে আপনাদের সিভি পাঠাতে পারেন।
শিরোনাম ::::
বড়লেখার দাসেরবাজারে নৌকাকে ডুবিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীর জয় সিলেট চেম্বারের সাথে রড সিমেন্ট ঢেউটিন মার্চেন্ট গ্রুপের মতবিনিময় দক্ষিণ সুরমার লালাবাজারে নৌকার তুহিন বিজয়ী দক্ষিণ সুরমার দাউদপুরে নৌকার প্রার্থী বিজয়ী নবনির্বাচিত মেম্বার আব্দুল আহাদকে তেমুখি মৎস্য আড়ৎ ব্যবসায়ীর সংবর্ধনা নারী নির্যাতন প্রতিরোধে জাতীয় মহিলা সংস্থা সিলেটের উঠান বৈঠক সিলেটে নাতির কোলে চড়ে ভোট দিলেন শতবর্ষী নানী! গোল্ডেন ড্রীম ওমেন অর্গানাইজেশনের ফ্রী খতনা ক্যাম্প সম্পন্ন সিলেটে তৃতীয় ধাপে ৭৭ ইউনিয়নে ভোটযুদ্ধ নিজেকে বিয়ে করা সেই মডেল এবার চাইলেন বিচ্ছেদ ‘সক্কাল সক্কাল… অর্গাজম’! চমকে দিলেন শ্রীলেখা শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করছে বাংলাদেশ অরাজনৈতিক ইস্যু নিয়ে আন্দোলন করছে বিএনপি : কৃষিমন্ত্রী মিরপুরে গার্মেন্টস কর্মীদের সড়ক অবরোধ বরিশালে একই পরিবারের পাঁচ সদস্যের ইসলাম ধর্ম গ্রহণ ছাত্রদল নেতা সামসুদ্দোহার পিতার মৃত্যুতে সিলেট ছাত্রদলের শোক সিলেটে বন্ধ প্রচারণা, অপেক্ষা ভোটের মরহুম হাজী মাহমদ আলী খান ওয়েলফেয়ার ট্রাষ্ট উদ্বোধন:-এমপি হাবিব নারীদের ক্ষমতায়নে প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকা অপরীসিম-সিলেটে পররাষ্ট্রমন্ত্রী
কোটা নিয়ে মতামত দিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল

কোটা নিয়ে মতামত দিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল

ফোকাস নিউজ:: সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা নিয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম মতামত দিয়েছেন। সোমবার (২০ আগস্ট) বিকালে এ বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল বাংলানিউজকে বলেন, মতামত পাঠিয়ে দিয়েছি। কী মত দিয়েছেন এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটা বলা ঠিক হবে না।’

মুক্তিযোদ্ধা কোটার বিষয়ে আদালতের রায় নিয়ে সরকারের পক্ষ থেকে মতামত চাওয়ার প্রেক্ষিতে শনিবার (২০ আগস্ট) বাংলানিউজের এক প্রশ্নের জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেছিলেন, ‘আমি শুধু রায়ের বিষয়ে মতামত দেবো। কিন্তু সিদ্ধান্ত নেবে তো সরকার।’

সরকারি চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যে গত ২ জুলাই মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সচিবকে প্রধান করে সাত সদস্যের কমিটি গঠন করে সরকার।

প্রাথমিকভাবে ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হলেও পরবর্তীতে আরো ৯০ কার্যদিবস সময় পায় এ কমিটি।

এরমধ্যে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠক শেষে গত ১৩ আগস্ট নিজ থেকেই কোটা নিয়ে কথা বলেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

কোটা সংস্কার বা পর্যবেক্ষণে গঠিত কমিটির প্রধান শফিউল আলম ওইদিন বলেন, এ ব্যাপারে আমরা কমিটি প্রায় চূড়ান্ত করে ফেলেছি।

তিনি বলেন, আমাদের কমিটির মোটামুটি সুপারিশ হলো- কোটা অলমোস্ট উঠিয়ে দেওয়া, মেধাকে প্রাধান্য দেওয়া। তবে আদালতের একটা ভারডিক্ট আছে। মুক্তিযোদ্ধাদের কোটা প্রতিপালন করতে হবে, সংরক্ষণ করতে হবে এবং যদি খালি থাকে খালি রাখতে হবে।

‘এ ব্যাপারে সরকার আদালতের কাছে মতামত চাইবে। যদি আদালত এটাকেও ওকে করে দেন তাহলে কোটা থাকবে না। আর যদি আদালত বলেন, ভারডিক্ট দেন যে, না ওই অংশটুকু সংরক্ষিত রাখতে হবে তাহলে ওই অংশটুকু বাদ দিয়ে বাকি সব উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে। এটা হলো প্রাথমিক সুপারিশ।’

সরকারি চাকরিতে কোটা ব্যবস্থা দীর্ঘদিনের। ১৯৭২ সালের ৫ নভেম্বর এক নির্বাহী আদেশে সরকারি, আধা-সরকারি, প্রতিরক্ষা ও জাতীয়করণ হওয়া প্রতিষ্ঠানে জেলা ও জনসংখ্যার ভিত্তিতে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা এবং ক্ষতিগ্রস্ত নারীদের জন্য ১০ শতাংশ কোটা পদ্ধতি প্রবর্তন করা হয়।

পরে বিভিন্ন সময়ে এই কোটা পদ্ধতির সংস্কার, পরিমার্জন ও পরিবর্তন করেছে সরকার। বর্তমানে প্রজাতন্ত্রের প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণীর পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও নাতি-নাতনি ৩০ শতাংশ, প্রতিবন্ধী ১ শতাংশ, নারী ১০ শতাংশ, পশ্চাৎপদ জেলাগুলোর জন্য কোটা ১০ শতাংশ, ক্ষুদ্র নৃ গোষ্ঠী ৫ শতাংশ কোটা পদ্ধতি সংরক্ষিত।

গত ১১ জুলাই মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আদালতের সিদ্ধান্তে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা সংরক্ষণের আদেশ অগ্রাহ্য করার কোনো সুযোগ নেই। অগ্রাহ্য করা হলে তা আদালত অবমাননার শামিল হবে।

কোটা সংস্কার আন্দোলনের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধাসহ সংশ্লিষ্ট পক্ষ কোটা বহাল রাখার দাবি জানিয়ে আসছে।

মুক্তিযোদ্ধা কোটার বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সচিব বলেন, রায় বুঝতে আদালতের মতামত নেওয়া হবে। আদালতের ইনস্ট্রাকশন বা অবজারভেশন আমাদের নির্বাহী বিভাগের জন্য বাইন্ডিং হয়ে যায়। এটাকে আমরা ইগনর করতে পারবো না। যেভাবে লেখা আছে বাইন্ডিংয়ের মতো।

কোটা সংস্কার আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভিসির বাসভবন ভাঙচুরসহ অরাজকতার মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় সংসদে কোটা একেবারে তুলে দেওয়ার পক্ষে মত দিয়েছিলেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিবও সাংবাদিকদের বলেন, আমাদের সিদ্ধান্ত হলো যতদূর সম্ভব কোটা বাদ দিয়ে মেরিটে চলে যাওয়া। এখন আমাদের সময় এসেছে এখন আমরা উন্মুক্ত প্রতিযোগিতায় যাবো।

অন্য কোটার মতো পশ্চাৎপদ জনগোষ্ঠীকে এগিয়ে নিয়ে আসার জন্য জেলা কোটাও চালু করে সরকার।

খুব তাড়াতাড়ি প্রতিবেদন দেওয়া হবে জানিয়ে সচিব বলেন, আমাদের অগ্রগতি জানালাম।

পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী তাহলে কীভাবে এগিয়ে আসবে- জানতে চাইলে ওইদিন সচিবালয়ে তিনি বলেন, আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখেছি ওনারা অনেক এগিয়ে গেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © sylhetfocusnews.com
Design BY Web Nest BD
ThemesBazar-Jowfhowo